বাংলাদেশে ভ্যাট নিবন্ধন নিলো গুগল-অ্যামাজন

প্রকাশিত: ০৩:৪৭ পি এম , ৩১ মে ২০২১

অনাবাসী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ভ্যাট নিবন্ধন পেয়েছে  গুগল ও অ্যামাজন।ঢাকা দক্ষিণ ভ্যাট কমিশনারেট থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নাম্বার (বিআইএন) নেয় প্রতিষ্ঠান দুটি। 

গুগল ‘গুগল এশিয়া প্যাসিফিক পিটিই লিমিটেড’ নামে এই নিবন্ধন পায় ২৩ মে এবং অ্যামাজন ‘আমাজন ওয়েব সার্ভিসেস ইনকরপোরেশন’ নামে ২৭ মে নিবন্ধন পায় ।

এর মাধ্যমে গুগল ও অ্যামাজন ভ্যাট রিটার্ন দাখিল করে সরাসরি ভ্যাট পরিশোধ করবে। দেশে তাদের ভ্যাট রিটার্ন দাখিল ও কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করবে প্রাইসওয়াটার হাউসকুপারস বাংলাদেশ।এ দুটি ছাড়াও বাংলাদেশে সেবা দিয়ে থাকে আরও বৈশ্বিক প্রযুক্তি কোম্পানিগুলো একে একে ভ্যাট নিবন্ধন নিতে যাচ্ছে। 

এরমধ্যে ফেইসবুক, নেটফিক্স ইতোমধ্যে নিবন্ধন নেয়ার প্রক্রিয়ায় রয়েছে।২০১৯-২০২০ অর্থবছরেই গুগল, ফেইসবুক ও ইউটিউবের ভ্যাট কাটছিলো ব্যাংকগুলো। 

এর পাশাপাশি তখন হতে জুম, টিকটক, স্কাইপে, লিঙ্কইন, হইচই, অ্যামাজন প্রাইম, নেটফ্লিক্স, হইচই, এইচবিও নাউ, শোটাইম, জি৫, টুইটার এডস, জয়েনমিসহ ৭৬ টি সেবায় ভ্যাট আদায় করেছে কোনো কোনো ব্যাংক।এরমধ্যে শুধু গুগল, ফেইসবুক, ইউটিউবের ক্ষেত্রে ভ্যাট আদায়ে বেশি চেষ্টা করতো ব্যাংকগুলো। কিন্তু এগুলোসহ অন্যসব সেবায় ঠিকঠাক রাজস্ব মিলছে না দেখে নতুন করে বাংলাদেশ ব্যাংককে সেই সময় সব ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দেয়ার অনুরোধ করেছিলো এনবিআর।২০২০ সালের ১১ জুন এনবিআরের গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর (মূসক) বাংলাদেশ ব্যাংককে সে বিষয়ে চিঠিও দিয়েছিলো।২০১৯-২০ সালের বাজেটেই বৈশ্বিক প্রযুক্তি কোম্পানি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং ক্লাউড কম্পিউটিংয়ের ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট বাধ্যতামূলক করে সরকার।কিন্তু তখন এসব অনলাইন সেবায় ভ্যাট আরোপ করা হলেও সময়মতো ভ্যাট আদায় করা যায়নি নানা কারণেই।

সে সময় অনাবাসী কোম্পানির বিআইএন-নিবন্ধনের সুযোগ না থাকায় এটি কার্যকর করা যাচ্ছিল না। যদিও ভ্যাট আইনে স্থানীয় প্রতিনিধির বিআইএন নিবন্ধনের মাধ্যমে ভ্যাট আদায়ের সুযোগ আছে, কিন্তু ফেইসবুক-গুগল বা অন্য কেউ সেই পথে যেতে রাজি হয়নি। 

তারা বরং এনবিআরকে অনুরোধ করে নিয়মের কিছুটা পরিবর্তন করে তাদেরকে সরাসরি বিআইএন দেওয়ার জন্যে। মূলত বিদেশী এই কোম্পানিগুলো ভ্যাট প্রদানের ক্ষেত্রে জটিলতার বিষয়টি এনবিআরের সামনে তুলে ধরে তখন নিয়মটির ক্ষেত্রে শিথিলতার সিদ্ধান্ত আনার অনুরোধ করে তারা।

তখন ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারির দিকে বাংলাদেশে আবাসিক অফিস না থাকলেও ফেইসবুক বা গুগলের মতো প্রযুক্তি কোম্পানিগুলো জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাছ থেকে বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নাম্বার (বিআইএন) পাবে বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।


সর্বশেষ

জনপ্রিয় খবর