ধানমন্ডির বাসায় চুরি, লন্ডনে বসে দেখলেন মালিক

প্রকাশিত: ০৯:৩৮ এ এম , ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

বুধবার (৮ ডিসেম্বর) ভোর ৬টা। রাজধানীর ধানমন্ডির ১১/এ নম্বর সড়কের ৭৭/বি বাড়িতে প্রবেশ করে দুই চোর।

বাড়ির আলমারি ভেঙে স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা চুরি করে তারা বেরিয়ে যায়। এই দৃশ্য আবার লন্ডনে বসে দেখেন বাড়ির মালিক একরামুল ওয়াদুদ।

 

সিসিটিভি ক্যামেরায় চুরির ঘটনাটি দেখে নিরাপত্তাকর্মীকে ফোনে জানান তিনি।
চুরির ঘটনায় সিসিটিভি ক্যামেরার দুটি ফুটেজ এসেছে জাগো নিউজের এ প্রতিবেদকের হাতে।

এ ঘটনায় ধানমন্ডি থানায় অভিযোগ করেছেন ওই বাসার নিরাপত্তাকর্মী আফাজ। এরপর পুলিশ দুই চোরকে ধরতে অভিযান চালাচ্ছে।

 

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ধানমন্ডির পাঁচতলা বাড়ির তিনতলায় বসবাস করতেন লন্ডন প্রবাসী একরামুল ওয়াদুদ। তিনি দেশের বাইরে থাকায় বাড়িতে ছিলেন নিরাপত্তাকর্মী আফাজ। ঘটনার দিন ওই ফ্ল্যাটের দক্ষিণ-পশ্চিম কোণের রুমের জানালার গ্রিল কেটে প্রবেশ করে চোরচক্র।

 

এসময় তারা প্রায় ১৫ ভরি স্বর্ণ ও নগদ কয়েক লাখ টাকা চুরি করে নিয়ে যায় এবং রুমের কয়েকটি আলমারি তছনছ করে।


ঘটনার পর ধানমন্ডি থানার পুলিশ, মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও সিআইডির ক্রাইম ইউনিট আলামত সংগ্রহ করে।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, তখন ভোর ৬টা ১০ মিনিট। রুমের জানালার পর্দা সরিয়ে টর্চলাইট দিয়ে ঘরের ভেতর দেখছে চোরচক্রের এক ব্যক্তি।

ঘরে কেউ নেই নিশ্চিত হয়ে গ্রিল কাটা শুরু হয়। এর পাঁচ মিনিট পর মুখে কালো মাস্ক পরা এক চোর গ্রিল কেটে রুমে প্রবেশ করে। রুমে ঢুকেই দেখতে পায় সিসিটিভি ক্যামেরা। ফলে ওই চোর ক্যামেরার সামনে কাগজ লাগিয়ে দেয়।

কিন্তু ফ্ল্যাটে থাকা অপর আরেকটি সিসিটিভি ক্যামেরায় ধরা পড়ে বাকি ঘটনা। ওই ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, এক রুম থেকে অন্যরুমে প্রবেশের চেষ্টা করছে চোরেরা।

 

বাসার নিরাপত্তাকর্মী আফাজ জানান, ঘটনার দিন তিনি ঘুমিয়ে ছিলেন। তার মালিক বিদেশ থেকে চুরির বিষয়টি জানান। পরে তিনি রুমে ঢুকে দেখেন স্বর্ণসহ নগদ টাকা ও মূল্যবান জিনিস নিয়ে গেছে চোরচক্র।

আফাজ বলেন, যেহেতু ফ্ল্যাটের মালিক দেশের বাইরে, তাই আমি নিজেই থানায় গিয়ে অভিযোগ করি।
ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী মিয়া জাগো নিউজকে বলেন, চুরির ঘটনায় বাসার নিরাপত্তাকর্মীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। সংগ্রহ করা হয়েছে সিসিটিভি ফুটেজ।

ওই নিরাপত্তাকর্মী একটি অভিযোগ দিয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা হবে।

জানতে চাইলে ডিএমপির রমনা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমান জাগো নিউজকে জানান, পুলিশ চোরদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে।

আশা করছি শিগগির তাদের গ্রেফতার করতে পারবো।
 


সর্বশেষ

জনপ্রিয় খবর